করোনা ভাইরাস

একটি সবজি যা টিকার বিকল্প হিসাবে কাজ করবে

রসুনের করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ করা সম্ভব

পৃথিবীজুড়ে সকল মানুষ বর্তমানে করোনা মহামারিতে ভুগছে। কিন্তু করোনার ভ্যাকসিনের সংখ্যা খুবই কম। তৃতীয় বিশ্বের দেশগুলোতে ভ্যাকসিনের পরিমাণ আরো কম। ফলে দিনের পর দিন অপেক্ষা করেও মানুষ ভ্যাকসিন পাচ্ছে না।

ভ্যাকসিনের বিকল্প হিসাবে কাজ করবে একটি সবজি। যেই সবজি আমাদের সবারই বাসায় সব সময় থাকে। সবজিটির নাম হলো রসুন। রসুন আমাদের শরীরের জন্য ভালো তা আমরা প্রায় সকলেই জানি। রসুন খেলে আমাদের সকলের ইমিউটি বাড়ে।

প্রতিদিন খাওয়ার সময় এক থেকে দুই কোয়া রসুন খেলে আমাদের সকলের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়। রসুন রান্নার স্বাদ ও গন্ধ বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে।

রসুন অ্যান্টিসেপটিক, অ্যান্টিফাঙ্গাল, অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল এজেন্ট হিসাবে কাজ করে। রসুন বিভিন্ন ধরনের ক্ষতিকারক ভাইরাসকে আটকাতে সাহায্য করে। কাঁচা রসুনের উপকারিতা বেশি রান্না রসুনের চেয়ে। জ্বর, ঠান্ডা, গলা ব্যথা ও গা ব্যথা থেকে রসুন রক্ষা করে।

কাঁচা রসুনের ঝাঝ খুব বেশি। কাঁচা রসুন খেলে ইমিউটি ক্ষমতা বেড়ে যায়। দুপুরে ও রাতে খাওয়ার সময় কাঁচা রসুন খাওয়া ভালো। তাহলে আমাদের ইমিউনিটি ক্ষমতা বাড়বে ও ইনফেকশন কমাতে সাহায্য করে। রান্না করা রসুনের ক্ষমতা কিছুটা কম। শরীরের ইমিউনিটি ক্ষমতা বাড়ানোর জন্য রসুন খুব ভালো কাজ করে।

রসুন পরিষ্কার পানিতে ধুয়ে নিয়ে কোয়াগুলো কিছু সময়ের জন্য পানিতে ভিজিয়ে রেখে কাঁচা খেতে হবে। করোনাতে নিজেকে ও নিজের পরিবারকে সুস্থ রাখতে কাঁচা রসুন খাওয়ার কোন বিকল্প নেই। খাদ্য বিপাক ও অগ্ন্যাশয়ের কোন সমস্যা থাকলে রসুন না খাওয়াই ভালো। তখন চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে রসুন খেতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

ভিটামিন সি গ্রহণে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্ট প্রতিরোধ করা সম্ভব।

আদা ও আদা, রসুন বাটা সংরক্ষণ পদ্ধতি

ভেষজ যা অ্যান্টিবায়োটিক হিসাবে কাজ করে

রসুনের উপকারীতা

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.