খাদ্য ও স্বাস্থ্যকথাখাদ্য টিপস

গরমে শরীর ঠান্ডা করা সবজি

গরমে শরীর ঠান্ডা করা সবজি

রোজার এই সময়ে ও গরমের দিনে খাবার খাওয়ার প্রতি আগ্রহ অনেকটাই কমে যায়। রোজার এই সময়ে খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তনের সময়ে কি খেলে সুস্থ থাকবে বা কি খেলে শরীর অসুস্থ হয়ে পড়বে সেই নিয়ে অনেকেই দ্বিধা দন্দে থাকে। এবারের রোজা যেহেতু গরমের সময়ে তাই খাবারের প্রতি একটু বেশি সচেতন হতে হচ্ছে। আবার এসময়ে ডায়ারিয়া, পেটের সমস্যা, বমি, পেটে ব্যথা, বদহজম, গ্যাসসহ আরো অনেক সমস্যা দেখা দিচ্ছে।

গরমের দিনে শরীর ঠান্ডা রাখাটা খুব বেশি জরুরি। তাই ফল ও পানি খাওয়ার পাশাপাশি শাক-সবজিও খেতে হবে। কিছু কিছু শাক-সবজি আমাদের দেহকে অনেক বেশি ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। তাই গরমে শরীর ঠান্ডা করা খাবার ও পেট ভালো রাখার জন্য কিছু সবজি খেতে পারেন।

তাহলে দেখে নিই কোন কোন সবজি আমাদের পেট ঠান্ডা রাখে-

১। শাকঃ

পালং শাক

গরমের সময়ে বিভিন্ন রকমের শাক আমাদের পেট ও শরীর ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। যেমনঃ পুদিনা পাতা, পালং শাক ইত্যাদি। তাছাড়া এইসময়ে যেকোন ধরনের শাক খাওয়া যেতে পারে। ডাল, পরোটা, সালাদ, স্যুপ যেভাবেই শাক খাওয়া হোক না কেন গরমের সময়ে এগুলো আমাদের শরীর ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। সবুজ রঙয়ের শাক-সবজিতে প্রচুর পরিমাণে আয়রন ও ক্যালসিয়াম পাওয়া যায়। এছাড়াও এতে প্রচুর পরিমাণে ফোলেট ও পানি থাকে যা আমাদের শরীরকে ঠান্ডা ও সতেজ রাখতে সাহায্য করে।

২। শসাঃ

শসা

শসা পুষ্টিগুণে ভরপুর একটি খাবার। শসা সারাবছরই পাওয়া যায়। শসাতে পানির পরিমাণ খুব বেশি থাকে। তাই শসা পেট ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে। শসাতে ভিটামিন কে, ভিটামিন সি ও প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট থাকে। গরমে শসা শরীর ঠান্ডা রাখে। তাই ইফতার ও সেহেরীতে শসা খাওয়া যেতে পারে।

৩। লাউঃ

লাউ

লাউ সবজিটা অনেকেই খেতে খুব একটা পছন্দ করে না। কিন্তু লাউ পুষ্টিগুণে ভরপুর একটা সবজি। গরমের সময়ে লাউ খাওয়া খুব উপকার। লাউতে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম থাকে যা হাড় গঠন করতে সাহায্য করে। লাউ কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখে, রক্তে শর্করা নিয়ন্ত্রণ করে ও পেটের সমস্যা দূর করে। তাই রোজার সময়ে সেহেরী ও ইফতারে লাউ এর কোণ তরকারী রাখতে পারেন।

৪। বরবটিঃ

বরবটি

বরবটি একটি উপকারী সবজি। বরবটি বিভিন্নভাবে খাওয়া যায়। বরবটি তরকারী হিসাবে রান্না করে খাওয়া যায়, ভর্তা, ভাজি, সালাদ যেকোনভাবেই বরবটি খাওয়া যায়। বরবটিতে ক্যালরি ও ফাইবারের পরিমাণ খুব বেশি থাকে। বরবটি হজম করতে খুব ভালো সাহায্য করে। বরবটি ভিটামিন কে, প্রোটিন, আয়রন, জিংক ও অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের খুব ভালো উৎস। তাই ইফতার ও সেহেরীতে বরবটি রাখা যেতে পারে।

। করলাঃ

করলা

করলা তিতা স্বাদের একটি সবজি। করলায় ভিটামিন সি, আয়রন, ক্যালসিয়াম ও পটাশিয়াম থাকে প্রচুর পরিমাণে। তাই করলার রস পান করলে পেটের সমস্যা দূর হয়ে যায়। পাশাপাশি হৃদরোগ হওয়ার সম্ভাবনা কমে যায়। করলা আমাদের হজম প্রক্রিয়া স্বাভাবিক রাখে। রক্তে শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে থাকে। গরমে নিয়মিত করলা খেলে শরীর ঠান্ডা থাকে। তাই সেহেরীতে করলার যেকোন পদ রাখা যেতে পারে।

আরো পড়ুনঃ রোজায় কেমন হওয়া উচিত খাদ্যাভ্যাস

গরম দুধে খেজুর মিশিয়ে খাওয়ার উপকারিতা

যেসব খাবার ফ্রিজে রাখা উচিত নয়

খালি পেটে ডাবের পানি খাওয়ার উপকারিতা

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.