মামা ও শিশু

গর্ভাবস্থায় কিসমিস খাওয়া উপকারী না অপকারী?

গর্ভাবস্থায় কিসমিস খাওয়ার উপকারিতা

মেয়েদের গর্ভধারণের সময়ে অনেক বেশি সচেতন হতে হয়। তখন তার ডায়েট নিয়ে অনেক বেশি চিন্তা করতে হয়। গর্ভাবস্থায় একটি মহিলা কোন কিছু মুখে দেওয়ার আগে ভেবে চিন্তে মুখে দেয়। সে ভাবতে থাকেন খাবারটি তার জন্য ভালো হবে কিনা। খাবারটি তার স্বাস্থ্যের উপর কোন ধরনের প্রভাব ফেলবে কিনা।

গর্ভাবস্থায় যে শুধু গর্ভবতী মহিলা নিজেই চিন্তা করেন তা কিন্তু নয়, তার আশেপাশের প্রতিটি মানুষই তাকে নিয়ে চিন্তা করতে থাকেন। এসময় চিকিৎসকেরা স্বাস্থ্যকর খাবার হিসাবে ড্রাই ফ্রুট খেতে বলেন। ড্রাই ফ্রুট বাদামের পাশাপাশি কিসমিস কি আপনার জন্য উপকারী না অপকারী তা নিয়ে আজ আমরা কথা বলবো।

গর্ভাবস্থায় কিসমিস খাওয়া কতোটা নিরাপদ?

গর্ভাবস্থায় কিসমিস খাওয়া একদমই নিরাপদ। কালো শুকনো আঙ্গুর খুব বেশি পুষ্টিকর। কিসমিস একজন গর্ভবতী মহিলার স্বাস্থ্য ভালো রাখার জন্য খুবই উপকারী।

এখন তাহলে জেনে নেওয়া যাক এই কিসমিসের পুষ্টি গুণাগুণ-

। আয়রন বা লোহা-

কিসমিসে অনেক বেশি আয়রন বা লোহা পাওয়া যায়। এটি আমাদের শরীরে অনেক আয়রন বা লোহা সরবরাহ করে থাকে। শরীরের জন্য আয়রন খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটা উপাদান কারণ এটি আমাদের রক্ত প্রবাহ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে। আয়রন হৃদযন্ত্রের সু-স্বাস্থ্য বজায় রাখতে সাহায্য করে। আয়রন অক্সিজেন বহনকারী রক্ত কোষগুলোর ফুসফুসের মধ্যে গ্যাসীয় আদান প্রদান নিশ্চিত করার একটি স্বাস্থ্যকর উৎস হিসাবে কাজ করে। কিসমিস ফুসফুসকে সুস্থভাবে কাজ করতে সাহায্য করে। আয়রনের ঘাটতি জনিত অ্যানিমিয়া রোগ দূর করে কিসমিস।

২। ফাইবার-

কিসমিসে অনেক বেশি পরিমাণে ফাইবার থাকে। কিসমিস হজম করা খুবই সহজ। কিসমিস আমাদের পাচন তন্ত্রকে সঠিক পথে রাখতে সাহায্য করে। ফাইবার একটি সাধারণ মহিলার থেকে একজন গর্ভবতী মায়ের জন্য খুব বেশি প্রয়োজন। হরমোনের ভারসাম্যহীনতা সহ বিভিন্ন ধরনের সমস্যা মোকাবেলা করতে কিসমিস খুব বেশি সাহায্য করে।

৩। ক্যালসিয়াম-

ক্যালসিয়াম আমাদের দেহের একটি অতি প্রয়োজনীয় উপাদান। ক্যালসিয়াম আমাদের হাড়ের স্বাস্থ্য, দাঁতের স্বাস্থ্য ঠিক রাখতে সাহায্য করে। ক্যালসিয়াম কোলেস্টেরল বিশোষণ করে ও ত্বকের স্বাস্থ্য ভালো রাখে ও ক্যালসিয়াম আমাদের হ্রদযন্ত্র ভালো রাখতে সাহায্য করে। আমাদের দেহের সব ধরনের কাজগুলোকে সঠিকভাবে অব্যাহত রাখতে ক্যালসিয়াম খুব ভালো কাজ করে। গর্ভবতী মহিলাদের জন্য ক্যালসিয়াম খুব বেশি গুরুত্বপূর্ণ। এটি শিশুর হাড়ের গঠন ও বিকাশের জন্য খুব বেশি প্রয়োজনীয়। এটি শিশুর হাড়ের ঘনত্ব স্বাভাবিক রাখে ও তার যথাযথ বিকাশ নিশ্চিত করে।

কিসমিস

গর্ভাবস্থায় কতগুলো কিসমিস খাওয়া যাবে?

প্রতিদিন এক মুঠো করে কিসমিস গর্ভাবস্থায় খাওয়া যেতে পারে। তাহলে শিশু ও মা দুইজনই স্বাস্থ্যকর হয়ে উঠবে। এগুলো চায়ের সাথে পুষ্টিকর স্ন্যাক্স হিসাবে খাওয়া যেতে পারে। দূর্বল বোধ করলেই এক মুঠো কিসমিস খাওয়া যেতেই পারে।

গর্ভাবস্থায় কিসমিস খাওয়ার উপকারিতা-

কিসমিস মা ও বাচ্চা দুইজনের জন্যই খুব বেশি উপকারী। তবে গর্ভাবস্থায় কিসমিস খাওয়ার ফলে মায়ের উপর কিরকম প্রভাব পড়তে পারে সেটা বুঝে চলা খুব বেশি দরকারী। গর্ভাবস্থায় কিসমিস খাওয়ার উপকারিতা-

১। কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি দেয়-

কিসমিসের প্রচুর পরিমাণে ফাইবার পাওয়া যায়। তাই কিসমিস আমাদের কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে। গর্ভাবস্থায় কোষ্ঠকাঠিন্য হওয়াটা খুবই সাধারণ একটা বিষয়। এই কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্তি দিতে কিসমিস সহায়তা করে।

২। দাঁতের স্বাস্থ্য উন্নত করে-

কিসমিসে প্রচুর পরিমাণে ক্যালসিয়াম ও ওলিয়ানলিক অ্যাসিড থাকে । এসব উপাদান দাতকে রক্ষা করতে সাহায্য করে। এসময় হরমোনের ভারসাম্যহীনতার কারণে দাঁতের অবস্থা খারাপ হয়ে পড়ে। কিসমিস এই দাঁতের অবস্থা ভালো করতে সাহায্য করে।

৩। পাচন তন্ত্রকে শক্তিশালী করে-

কিসমিসে যেহেতু উচ্চ পরিমাণে ফাইবার থাকে তাই এই উপাদানটি দেহের মধ্যের পাচন ক্রিয়াকে উন্নত করে। তাই গর্ভবতী হওয়ার পরে প্রতিদিন এক মুঠো করে কিসমিস খেলে পাচন ক্রিয়া সুস্থ থাকবে।

৪। রক্ত কণিকাকে বাড়িয়ে তুলতে সাহায্য করে-

কিসমিস আমাদের দেহের হিমোগ্লোবিনের উতপাদন বাড়িয়ে দেয়। ফলে দেহের লোহিত রক্ত কণিকার সংখ্যাও বৃদ্ধি পায়। গর্ভবতী হওয়ার পর আমাদের দেহ প্রচুর ট্রমার মধ্য দিয়ে যায়। এসময় দেহে অসংখ্য পরিবর্তন দেখা যায়। ফলে দেহের লোহিত রক্তকণিকার উপর প্রভাব পড়তে পারে। কিসমিস খেলে এধরনের অনেক সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

৫। শক্তি জোগায়-

কিসমিস প্রাকৃতিক গ্লুকোজ হিসাবে কাজ করে। খিদে লাগলে কিসমিস খেলে তৎক্ষণাৎ প্রচুর শক্তি পাওয়া যায়।

আরো পড়ুনঃ

খাটি মধু চেনায় উপায়

পুনরায় ভাত গরম করছেন?

খাবার থেকে পোড়া গন্ধ দূর করার উপায়

কাঁচা শাক সবজি দীর্ঘসময় সংরক্ষণের উপায়

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.