পুষ্টি পরামর্শ

চকলেট খাচ্ছেন? না কি খাচ্ছেন না? জানুন চকলেটের উপকারিতা ও অপকারিতা

চকলেটের উপকারিতা ও অপকারিতা

চকলেট পছন্দ করে না এমন মানুষ খুজে পাওয়া কষ্টকর। বাচ্চা থেকে বুড়ো সবাই চকলেট পছন্দ করে। উপহার পাওয়া ও দেয়ার ক্ষেত্রে চকলেট হতে পারে সেরা। আর  বাচ্চারা চকলেট এতোই পছন্দ করে যে তাদেরকে একটি চকলেট দিয়ে সব কাজ করিয়ে নেওয়া যায়। কিন্তু অনেকের মতামত চকলেট আমাদের শরীরের জন্য ক্ষতিকর।

চকলেটের মূল উপাদান হচ্ছে কোকোয়া। যা কোকো বীজ থেকে উৎপত্তি। এই বীজ তীব্র তিতাযুক্ত। কোকোয়াতে রয়েছে ফ্ল্যাভোনয়েডস যা চকলেটকে এন্টিওক্সিডেন্টে পরিণত করে। তাই যে চকলেটে কোকোয়ার পরিমাণ যত বেশি সেই চকলেট শরীরের পক্ষে তত উপকারী। ডার্ক চকলেটে কোকোয়ার পরিমাণ বেশি তাই চকলেটের মাঝে ডার্ক চকলেট শরীরের জন্য তত উপকারী।এতে রয়েছে আয়রন,ম্যাগনেসিয়াম,কপার, ম্যাঙানিজ।

আমরা সাধারণত বাজারে দুইধরনের চকলেট বার পেয়ে থাকি। ডার্ক চকলেট এবং দুধ মিশ্রিত চকলেট।

ডার্ক চকলেটে সাধারণত ৭০%, ৮৫% এবং ৯০% কোকোয়া সমৃদ্ধ ডার্ক চকলেট পাওয়া যায়। কোকোয়ার পরিমাণ যত বেশি থাকবে চকলেট তত বেশি তিতা স্বাদ যুক্ত হবে। তাই ডার্ক চকলেট খেতে তিতা লাগে। তাছাড়া চকলেট যে শুধু বার অবস্থায় পাওয়া যায় তা না ,তরল অবস্থায় ও পাওয়া যায়। এর মানে চকলেট পানীয় অবস্থায় ও অনেক উপকারী।

চকলেটের উপকারিতাঃ

  • উচ্চ রক্তচাপ স্বাভাবিক করে এবং হৃদযন্ত্রের বিভিন্ন রোগ থেকে রক্ষা করে। এতে রয়েছে পলিফেনল যা হৃদযন্ত্র সুস্থ্য রাখতে সাহায্য করে।
  • রক্তে শর্করার হ্রাস-বৃদ্ধি নিয়ন্ত্রন করে স্বাভাবিক রাখে, তাই এটি ডায়াবেটিস  নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে।
  • ডার্ক চকলেটে থাকা ক্যাটেকিনস নামের এন্টি অক্সিডেন্ট পদার্থ ক্যান্সার প্রতিরোধে সাহায্য করে। এই এন্টি অক্সিডেন্ট শরীর থেকে টক্সিন বের হয়ে যেতে সাহায্য করে। যা ক্যান্সার সেল জন্ম নেওয়া থেকে রক্ষা করে।
  • ডার্ক চকলেটে থাকা এন্টি অক্সিডেন্ট মস্তিষ্কের ক্ষ্মতা বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। ফলে স্মৃতিভ্রমের ঝুকি কমায় ও মনোযোগ বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। এতে মানসিক অবসাদ ও চাপ কমে।
  • এতে থাকা রাসায়নিক উপাদান ডায়রিয়া নিরাময়ে অনেক সাহায্য করে।
  • এটি দেহের প্রদাহ জনিত সমস্যা কমাতে সাহায্য করে।
  • যেসব মেয়েরা গর্ভাবস্থায় বেশি ডার্ক চকলেট খায় তাদের বাচ্চারা অনেক বেশি হাসিখুশি থাকে।
  • এটি আমাদের ত্বককে সূর্যের অতিবেগুনী রশ্নি থেকে বাচতে সাহায্য করে যা ত্বকের সানবার্ন হওয়ার জন্য দায়ী।
  • ডার্ক চকলেট শরীরের রক্ত প্রবাহের হার বাড়িয়ে দেয় যা চুলের গোড়ায় পুষ্টির ঘাটতি দূর করে।
  • ডার্ক চকলেট রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাডায়।
  • চোখের গঠনে সাহায্য করে।
  • এটি শরীরের গঠনে সাহায্য করে এবং শরীর থেকে ক্ষতিকর কোলেস্টেরল কমিয়ে উপকারী কোলেস্টেরল বৃদ্ধিতে সাহায্য করে।
চকলেট

চকলেটের অপকারিতা

  • চকলেট অনেক ক্ষেত্রে বুক জ্বালা পোড়া করার জন্য দায়ী।
  • যাদের কেটে গেলে রক্ত সহজে বন্ধ হয় না তাদের চকলেট খেলে অসুবিধা হতে পারে।
  • যাদের রাতে ঘুম কম হয় তাদের চকলেত বেশি খাওয়া ভালো না।
  • চকলেট বৃদ্ধ ব্যক্তিদের হাড়ের রোগের কারণ হতে পারে।
  • কিডনিতে পাথর হওযার ঝুকি থাকে।
  • যেসব চকলেট দুধ, চিনি ও চর্বি দিয়ে তৈরী সেগুলো শরীরের বিভিন্ন ক্ষতির কারণ হতে পারে। এগুলো স্বাস্থ্য বাড়ানোর জন্য দায়ী।
  • যারা মাইগ্রেনের সমস্যায় ভুগছেন তাদের চকলেট বেশি খেলে ক্ষতির সম্ভাবনা বেশী থাকে।
  • কিছু কিছু সময় বাচ্চাদের এলার্জির কারণ ও হতে পারে।
  • মিষ্টিজাতীয় চকলেট খেলে বাচ্চাদের দাতে পোকা হতে পারে। বিশেষ করে যারা রাতে দাত ব্রাশ করে না।
  • চকলেট বেশী খেলে মুটিয়ে যাওয়ার সমস্যা ও দেখা দিতে পারে

চকলেত আমাদের শরীরের বিভিন্ন উপকার করলেও এটা আমাদের বেশী ক্ষতি করে থাকে।তাই বলা যায় চকলেটের উপকারিতা ও অপকারিতা দুইই আছে। তাই আমাদের নিজেদের শরীর বিভিন্ন সমস্যার কিথা মাথায় রেখেই আমাদের চকলেট খাওয়ার মাত্রা বাড়াতে বা কমাতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.