ত্বকের যত্নরূপচর্চালাইফস্টাইল
Trending

টিনএজারদের ত্বকের যত্ন

টিওএজারদের ত্বকের যত্ন

বয়ঃসন্ধিকালে সাধারণত মেয়েরা ও ছেলেরা উভয়ই বিভিন্ন শারীরিক পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে যায়। কিন্তু ছেলেরা এসবের খুব একটা পাত্তা দেয় না। মেয়েদের শারীরিক এসব সমস্যার পাশাপাশি মানসিক বিভিন্ন সমস্যা ও দেখা দেয়। এছাড়াও এসময় হরমোন পরিবর্তনের কারণে তাদের ত্বকে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়।

মূলত ত্বকচর্চার জন্য কোন বয়স লাগে না। প্রতিদিন ত্বকের যত্ন নিতে হবে। ত্বক পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। আবহাওয়ার সাথে মিল রেখে ত্বকের যত্নের ও পরিবর্তন করতে হবে।

এসময়ে মেয়েদের কোন ধরনের ড্রেস মানাবে আবার কোন ধরনের ড্রেস মানাবে না , কোন ড্রেসের সাথে কোন হেয়ারস্টাইল মানবে এসব চিন্তার শেষ থাকে না। তাই এসময়ে মেকআপ, চুল, ত্বক সব কিছুর প্রতিই খেয়াল রাখতে হবে।

টিনেজারদের এসময়ে পড়াশোনা, সোশ্যাল লাইফ, ক্যারিয়ার, বন্ধুবান্ধব, হরমোলান সমস্যার ভিতর দিয়ে যেতে হয়। বেশির ভাগ টিনেজাররা একটা সমশ্যাই ভোগে। কোনটা তাদের করা উচিত আবার কোনটা করা উচিত নয়। এই বয়সে ত্বকে নানা ধরনের সমস্যা যেমন- ব্রণ, একনি, তৈলাক্ত ত্বক।

কিশোর এই বয়সে মেয়েরা ভুল করে বিভিন্ন কাজ করে ফেলে। তাই তাদেরকে কিছু বিষয় জেনে ত্বকের পরিচর্যা করতে হবে। মেকআপ প্রোডাক্ট কিনতে হবে ও ব্যবহার করতে হবে।

১। ত্বকের ধরন জানা

যেকোন মানুষের ত্বকের পরিচর্যা বা মেকআপ প্রোডাক্ট কিনতে যাওয়ার আগে প্রথমেই বুঝতে হবে তার নিজের ত্বকের ধরন। বড়দের দেখে ত্বকের পরিচর্যা বা মেকআপ প্রোডাক্ট কিনলে ঠকে যেতে হবে। হিতে বিপরিত হবে।

তাই প্রথমেই বুঝতে হবে ত্বক নরমাল, ড্রাই, অয়েলি নাকি কম্বিনেশন। এটা বোঝার একটা উপায় আছে। যেমন- সকালে ঘুম থেকে উঠে মুখের ত্বক স্পর্শ করে দেখতে হবে। যদি ত্বক নরম থাকে, কোন ধরনের প্যাচ না থাকে ও ত্বকে কোন ধরনের তেল না থাকে তাহলে বুঝতে হবে ত্বক নরমাল। আবার যদি ত্বক তৈলাক্ত লাগে, ব্রণ হয়, ব্রেক আউটস, পোরস থাকে তাহলে ত্বক অয়েলি।

আবার যদি ত্বক খুব ড্রাই লাগে, স্মুদ ভাব না থাকে তাহলে বুঝতে হবে ড্রাই স্কিন। আবার যদি টি জোনে অয়েলি লাগে কিন্তু মুখের বাকি অংশ গুলো ড্রাই লাগে তাহলে কম্বিনেশন স্কিন হবে।

অয়েলি স্কিনে দিনে দুইবার ফেইসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুতে হবে। ড্রাই স্কিন হলে মাইল্ড ক্লিনজার দিয়ে মুখ ধুতে হবে। নরমাল স্কিনে নান- অ্যালোহোলিক মাইল্ড ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে।

২। পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকা

ঘুম থেকে উঠে একবার ও রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে একবার ত্বক ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে। ত্বকে জমে থাকা ঘাম, ময়লা ত্বকের খুব বেশি ক্ষতি করে। তাই ভালো একটা ক্লিনজার ব্যবহার করতে হবে। ত্বক খুব বেশি ঘষা মাজা করা যাবে না।

৩। ঘুমাতে যাওয়ার আগে মেকআপ তোলা

টিনএজারদের মেকআপ

প্রতিদিন বাইরে যেতে হলে মেকআপ করা হয়। এই মেকআপ যদি ভালো মতো পরিষ্কার করা না হয় তাহলে মুখে ব্রণ হতে পারে। মুখের বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দিতে পারে। এই বয়সে মেয়েদের সাজগোজের প্রতি খুব ঝোক থাকে। কোথাও যেতে গেলেই তারা খুব বেশি মেকআপ করে থাকে। আবার বাইরে থেকে এসেই ঘুমিয়ে যায় বা আলসেমি করে মেকআপ তুলে না। ফলে মুখে বিভিন্ন ধরনের সমস্যা দেখা দেয়। তাই প্রতিদিন ঘুমাতে যাওয়ার অবশ্যই মনে করে মেকআপ তুলতে হবে।

৪। ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার

সব ধরনের ত্বকেই বছরের ১২ মাসই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। স্কিন অয়েলি হোক বা ড্রাই হোক সবসময়ই ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। কিন্তু ময়েশ্চারাইজার শুধু ব্যবহার করলেই হবে না। ত্বকের ধরন অনু্যায়ী লাইট বা রিচ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে। অয়েলি স্কিনে লাইট ময়েশ্চারাইজার ও ড্রাই স্কিনে রিচ ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করতে হবে।

৫। দুই সপ্তাহে একবার স্ক্র্যাব

টিনএজাররা সারাদিন বাসার বাইরে থাকার কারণে তাদের মুখে অনেক বেশি ধুলা ময়লা জমে যায়। সেই ধুলা ময়লা স্কিনে খুব বেশি প্রভাব ফেলে। তাই সপ্তাহে দুইবার স্ক্র্যাব করতে হবে। বাসায় এটি করা যেতে পারে। ১ চা চামচ মধু অল্প পরিমাণ চালের গুঁড়া অথবা চিনি দিয়ে হালকা করে ৫ মিনিট ঘষে ধুয়ে ফেললে হয়ে যাবে।

৬। ফেসমাস্ক ব্যবহার

সপ্তাহের একদিন ফেসমাস্ক ব্যবহার করতে হবে। বাইরে থেকে কোন ক্যামিকেল যুক্ত ফেসমাস্ক ব্যবহার না করাই ভালো। বাসায় যেকোন একটি ফেসমাস্ক বানিয়ে ব্যবহার করতে হবে। হলুদ, বেসন, লেবু, মধু, কাঁচা দুধ, মুলতানি মাটি, টমেটো দিয়ে ভালো একটা ফেসমাস্ক বানিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে। এই মাস্ক ব্যবহার করলে মুখে অনেক জ্বেলা দেখা যায়।

৭। সানস্কিন ব্যবহার করুন

স্বাস্থ্যসম্মত ও টযান ফ্রি স্কিন পেতে একটি ভালো সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে। এটি ত্বককে সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি থেকে রক্ষা করে। এটি ব্যবহার না করলে আমাদের ত্বক রোদে পুড়ে যায় ও সানস্ক্রিন বয়সের ছাপ পড়ে যায়। তাই বাসা থেকে বের হওয়ার আগে একটা ভালো মানের সানস্ক্রিন ব্যবহার করতে হবে।

৮। প্রচুর পানি পান করুন

পানি ছাড়া যেমন জীবন বাচে না তেমনি ত্বক ও বাচে না। তাই সকাল থেকে শুরু করে সারাদিনে প্রচুর পানি পান করতে হবে। পানি বেশি করে পান করলে ত্বকে কোন ধরনের সমস্যা হওয়ার সম্ভাবনা কম থাকে।

৯। চিকিৎসকের পরামর্শ নিন

যদি এসব ভালো করে মেনে চলার পরও কোন ধরনের ত্বকের সমস্যা দেখা দেয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

ঘরোয়া উপায়ে ব্ল্যাক হেডস দূর করার উপায়

বর্ষায় চুলের যত্ন

পানি দিয়ে রূপচর্চা

ভাতের মাড় দিয়ে রূপচর্চা

ট্যান পড়া থেকে মুক্তির প্রাকৃতিক সমাধান

গরমকালে ড্রাই স্কিনের মেকআপ করার পদ্ধতি

চুলকে স্বাস্থ্যবান রাখতে ভিটামিন

চুল ঘন ও ঝলমলে করার উপায়

খুশকি দূর করার উপায়

২০২১ সালে ত্বকের পরিচর্যার জন্যে যেসব উপকরণগুলি আরো জনপ্রিয় হয়ে উঠবে

মধুতে হোক রুপচর্চা

চুল পড়া রোধের উপায়

গাজরে হোক রুপচর্চা

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.