রূপচর্চালাইফস্টাইলসৌন্দর্য চর্চা

ট্যান পড়া থেকে মুক্তির প্রাকৃতিক সমাধান

সান ট্যান থেকে মুক্তি

শীত বা গ্রীষ্ম যাই হোক না কেন আমাদের ত্বকে কিন্তু সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মি একটা খুবই বাজে প্রভাব ফেলে। এখন বাইরে যে পরিমাণে গরম পড়ছে এবং সূর্যের যে তাপ তাতে আমরা বাইরে বের হলেই আমাদের ত্বকের উপর একটা খাবার প্রভাব পড়ছে।

আমাদের ত্বক রোদে পুড়ে কালো হয়ে যাচ্ছে। মুখে ট্যান পড়ে যাচ্ছে।

শিশু থেকে বৃদ্ধ সকলেই কিন্তু এই ট্যান পড়া সমস্যার মুখোমুখি হচ্ছে। কিন্তু টিনেজাররা একটু বেশিই এই সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছে। একটা সুখবর আছে এই ট্যান থেকে মুক্তি পাওয়ার উপায় নিয়ে আলোচনা করবো।

আরো পড়ুনঃ গরমকালে ড্রাই স্কিনের মেকআপ করার পদ্ধতি

১। মধু-পেপে ফেস মাস্ক

মুখের ট্যান রিমুভ করতে পেপে মধু ফেস মাস্ক খুবই ভালো কাজ করে। পেপে আমাদের ত্বকের নিচের ময়লা দূর করে, মৃত কোষ অপসারণ করে এবং স্কিনটোনকে হালকা করতে সাহায্য করে।

আর মধু ব্যবহারে আমাদের ত্বক নরম হয় এবং ত্বক ময়েশ্চার থাকে।

আরো পড়ুনঃ চুলকে স্বাস্থ্যবান রাখতে ভিটামিন

কিভাবে ব্যবহার করতে হবে

একটি পাত্রে পেপে নিয়ে ভালো করে ম্যাশ করে নিতে হবে। ম্যাশ করা পেপের মধ্যে এক টেবিল চামচ মধু মিশাতে হবে। মিশ্রণটি খুব ভালো তৈরী করে মুখে লাগিয়ে ৩০ মিনিট রাখতে হবে। তারপর হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

আরো পড়ুনঃ
চুল ঘন ও ঝলমলে করার উপায়

২। কমলালেবু ও দইয়ের মাস্ক

ত্বকের ট্যান দূর করতে কমলালেবু খুব ভালো কাজ করে। কমলালেবুতে থাকে ভিটামিন সি যা ত্বকের দাগ দূর করে। ত্বক টানটান রাখতে সাহায্য করে। ভিটামিন সি এন্টি এজিং হিসাবেও কাজ করে।

দই একটি ব্লিচিং এজেন্ট। এটি প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার। এটি আমাদের ত্বককে ঠান্ডা রাখতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ গরমে পোশাক নির্বাচনে যেসব মাথায় রাখতে হবে

কীভাবে ব্যবহার করবেনঃ

একটি বাটিতে এক চামচ দই দিয়ে তাতে খুব অল্প পরিমাণে কমলা লেবুর রস মিশিয়ে মুখে লাগাতে হবে। ৩০ মিনিট মুখে রেখে দিয়ে পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।

আরো পড়ুনঃ পানি পান করার সঠিক নিয়ম

৩। অ্যালোভেরা, টমেটো, মসুরের ডালের মাস্ক

টমেটো, অ্যালোভেরা, মসুরের ডাল হলো প্রাকৃতিক ক্লিনজার। এগুলো আমাদের ত্বককে সবসময় পরিষ্কার রাখে, ডিপ ক্লিন করে। এটি একটি প্রাকৃতিক ট্যান রিমুভার। এগুলো ত্বককে উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য যে কাজগুলো করা দরকার

কীভাবে ব্যবহার করবেনঃ

১ টেবিল চামচ মসুর ডাল ভালো করে ভিজিয়ে ভালো করে পেস্ট করে নিতে হবে। তাতে এক টেবিল চামচ টমেটো এবং অ্যালোভেরা জেল দিয়ে ভালো করে মিশিয়ে নিতে হবে।

এরপর মাস্কটি মুখে লাগিয়ে ২০-৩০ মিনিট রেখে দিতে হবে। তারপর মাস্কটি শুকালে পরিষ্কার ঠান্ডা পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

আরো পড়ুনঃ খুশকি দূর করার উপায়

ট্যান থেকে মুক্তি

৪। মধু ও লেবুর মাস্ক

লেবু বহুকাল ধরেই মানুষ ত্বকের সমস্যার জন্য ব্যবহার করে আসছে। লেবুতে থাকা ভিটামিন সি আমাদের ত্বককে ক্লিন করে। ত্বকের লাবণ্যতা ফিরিয়ে আনে।

আবার যদি লেবুর সাথে মধু মিশিয়ে নেওয়া যায় তাহলে তো আর কোন কথাই নেই। মধু আমাদের ত্বককে কোমল রাখতে সাহায্য করে।

মধু ও লেবুর এই যুগলবন্দী আমাদের ট্যান পড়া থেকে রক্ষা করে। এই মাস্কের জন্য কোন আলাদা ঝামেলা করার প্রয়োজন হয় না।

এই ফেসপ্যাকটি তৈরী করে মুখে দেওয়ার সাথে সাথেই একটা ঝলমলে ভাব আপনার মুখে ফুটে উঠবে।

আরো পড়ুনঃ ত্বকের যত্নে অলিভ অয়েল এর উপকারিতা বা অপকারিতা।

কীভাবে ব্যবহার করবেনঃ

একটি বাটিতে লেবু চিপে নি্তে হবে। তাতে মধু মেশাতে হবে। প্যাক তৈরী হয়ে গেল। তারপর সেটি ভালো করে মুখে মাখিয়ে নিতে হবে। আধা ঘণ্টা রেখে ঠান্ডা পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ
খালি পেটে যেসব কাজ কখনোই করবেন না

৫। নারকেল দুধঃ

নারকেল দুধ আমাদের ত্বকের জন্য খুব ভালো কাজ করে। এটি খুব পুষ্টিকর। ত্বককে হাইড্রেট করে। ত্বকের হারানো আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনতে সাহায্য করে।

এতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। তাই এটি ব্যবহার করে ঘরে বসেই ট্যান তুলে ফেলা যায়।

আরো পড়ুনঃ ২০২১ সালে ত্বকের পরিচর্যার জন্যে যেসব উপকরণগুলি আরো জনপ্রিয় হয়ে উঠবে

কীভাবে ব্যবহার করবেনঃ

নারকেলের দুধে একটি তুলার বলকে ভিজিয়ে রাখতে হবে। সম্পূর্ণ ভিজে গেলে বলটি সারা মুখে মেখে নিতে হবে। যতক্ষণ পর্যন্ত এটি সারা মুখে শুষে নিচ্ছে বা সারা মুখ শুকিয়ে যাচ্ছে ততক্ষণ পর্যন্ত মুখে রেখে দিতে হবে। তারপর হালকা ক্লিনজার দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ খালি পেটে গ্রিন টি খাওয়া কতটা স্বাস্থ্যকর

৬. দুধ এবং কেশরের মিশ্রণঃ

জাফরান বা কেশর একটি প্রাচীন সৌন্দর্য উপাদান। ভারতীয় বহু রাজারা এটি ব্যবহার করতেন।

এটি ত্বককে প্রাকৃতিকভাবে ঝলমলে করতে সাহায্য করে। ত্বকের পিগমেন্টেশন, ডার্ক সার্কেল, ব্রণের সমস্যা দূর করে। এটি ত্বকের ট্যান দূর করতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ মধুতে হোক রুপচর্চা

কীভাবে ব্যবহার করবেনঃ

সামান্য জাফরান দুধে ভিজিয়ে রাখতে হবে। তারপর সেই দুধ ট্যানের উপর তুলার বল দিয়ে লাগাতে হবে।

আরো পড়ুনঃ গাজরে হোক রুপচর্চা

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.