ত্বকের যত্নরূপচর্চালাইফস্টাইল

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে যেসব খাবার

ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধিকারী খাবার

বর্তমান দিনে আমরা সবাই অনেক বেশি ব্যস্ত সময় পার করছি। আমাদের কারো খুব বেশি সময় নেই। প্রতিদিনের জীবনে আমাদের কোন নিয়ম মেনে চলার সময় নেই। আমরা কেউ সময় মতো খাওয়া-দাওয়া, ঘুম করতে পারছি না।

বর্তমান দিনে পাঁচ মিনিটে একটা সুন্দর মেকআপ করে মলিন, শুষ্ক, রুক্ষ্ম ত্বককে লুকানো মেয়েদের সংখ্যাই বেশি। তারা ঝটপট যেকোন একটা মেকআপ করে বের হয়ে যায়।

বর্তমানে প্রায় সবাই পরিকল্পনা বিহীন ডায়েট করে থাকে। ফলে ফ্যাট, কার্বোহাইড্রেট ঝেরে ফেলতে চায়। তাই ত্বকের খুব বেশি ক্ষতি হয়। ত্বকের খুব ক্ষতি হয়। ত্বক শুকিয়ে যায়। তাই আবহাওয়ার সাথে মিল রেখে হেলদি ডায়েট ফলো করতে হবে। যাতে শরীর ও ত্বক দুটোই পুষ্টি পায়।

কিন্তু এই সব কিছুর পরে সবাই চাই একটি দাগহীন, উজ্জ্বল ও মসৃণ ত্বক। এই উজ্জ্বল, মসৃণ ত্বক পেতে চাইলে একটি সঠিক ও আর্দশ খাদ্যতালিকা লাগবে। সৌন্দর্য বিশেষজ্ঞদের মতে, এমন একটি খাদ্য খেতে হবে যা আমাদের ত্বক মসৃণ ও উজ্জ্বল করবে।

আসুন জেনে নিই কোন কোন খাদ্য খেলে আমাদের ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ হবে-

১। গাজর

ত্বকের যেকোন সমস্যা দূর করে গাজর। ব্রেক আউটের সমস্যা কমায় গাজর। গাজর আমাদের বন্ধ লোমকূপের সমস্যা সমাধান করে। ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে। গাজরে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন এ রয়েছে। যা আমাদের ত্বকের জন্য খুবই উপকারী। এছাড়া বিটা ক্যারোটিন ও ক্যারোটিন্যেডস থাকে যা ট্যান পড়া বা রোদে পোড়া ভাব দূর করে ত্বককে উজ্জ্বল করে।

২। টমেটো

টমেটোতে প্রচুর পরিমাণে লাইকোপেন নামক অ্যান্ট-অক্সিডেন্ট থাকে যা আমাদের ত্বককে ব্রণ, র‍্যাশ, বলিরেখাম শুষ্কভাব কমায়। এতে প্রচুর পটাশিয়াম, ভিটামিন সি থাকে যা ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে সাহায্য করে। টমেটো খুব ভালো একটা সানস্ক্রিন হিসাবে কাজ করে। তাই ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করতে ও স্বাস্থ্যকর ত্বক পেতে প্রতিদিন টমেটো গ্রহণ করা উচিত।

৩। অলিভ ওয়েল

অলিভ ওয়েল ত্বকের সমস্যা সমাধান করতে খুব ভালো কাজ করে। প্রতিদিন ঘুমাতে যাওয়ার ১৫ মিনিট আগে আঙ্গুলের মাথায় করে সামান্য অলিভ ওয়েল নিয়ে চোখের চারপাশে ম্যসাজ করতে হবে। তারপর ১৫ মিনিট হয়ে গেলে মুছে নিতে হবে। তাহলে চোখের নিচের সমস্ত ডার্ক সার্কেল দূর করা সম্ভব হবে। মুখ ধোয়ার পর মুখে ও গলায় অলিভ ওয়েল লাগালে ত্বক কোমল ও মসৃণ হবে। গোসলের পর অলিভ ওয়েল ব্যবহার করলে ত্বক সহজেই তেল শুষে নিবে ও ত্বক ভালো মতো পুষ্টি পাবে।

৪। মিষ্টি আলু

মিষ্টি আপু অনেকেই খুব বেশি পছন্দ করে। মিষ্টি আলুতে ভিটামিন সি ও ই থাকে অনেক বেশি। তাই মিষ্টি আলু আমাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়ায়। ভিটামিন সি ত্বকের কোলাজেনের উৎপাদন বাড়ায় ও বয়সের ছাপ কমাতে সাহায্য করে। মিষ্টি আলু খেলে ত্বক মসৃণ, কোমল ও উজ্জ্বল থাকে।

৫। গ্রিন টি

গ্রিন টি শুধুমাত্র একটি পানীয়ই না বরং এটি একটি রূপচর্চার সামগ্রীও। গ্রিন টিতে প্রচুর অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট থাকে। এছাড়া নানাবিধ এনজাইম, অ্যামিনো এসিড, ফোলেট, ম্যাঙ্গানিজ, পটাশিয়াম, ভিটামিন বি, ক্যাফেন ও ফাইটোকেমিক্যাল থাকে। এগুলো ত্বকের জন্য খুবই উপকারী।

ত্বককে স্বাস্থ্যবান ও উজ্জ্বল রাখতে গ্রিন টি খুব ভালো কাজ করে। শরীরে জমে থাকা টক্সিন গ্রিন টি বের করে দিতে পারে। ত্বকের দাগ- ছোপ, কাটা দাগ, লালচে ভাব দূর করে গ্রিন টি।

দুই প্যাকেট গ্রিন টি এর সাথে দুই চামচ মধু ও সামান্য লেবুর রস মিশিয়ে মুখে ও ঘাড়ে লাগিয়ে নিতে হবে। ১০ মিনিট রেখে হালকা গরম পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। এছাড়া ও গ্রিন টিতে ট্যানিন ও অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট থাকে যা চোখের নিচের ফোলা ভাব ও কালি দূর করতে সাহায্য করে। দুই প্যাকেট গ্রিন টি আধা ঘণ্টা ফ্রিজে রেখে চোখের উপর ১৫ মিনিট রেখে দিতে হবে। তাহলে কালো দাগ দূর হয়ে যাবে।

৫। সবুজ শাকসবজি

ত্বকের জন্য উপকারী সবজি

সবুজ শাকসবজি খেলে আমাদের ত্বকের উজ্জ্বলতা বেড়ে যায়। মুখের বিভিন্ন দাগ তুলতে সবুজ শাকসবজি খুব ভালো উপকার করে। তাই ত্বক উজ্জ্বল ও মসৃণ রাখতে সবুজ শাকসবজি খেতে হবে।

। ডার্ক চকলেট

ডার্ক চকলেটের কথা শুনলে আমরা সবাই খাওয়ার একটা জিনিসের কথাই ভেবে থাকি। কিন্তু এই সুস্বাদু চকলেট দিয়ে আবার ত্বকের যত্ন নেওয়া যায় তা ভাবাই যায় না। চকলেটে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট থাকে যা ত্বক সুস্থ ও উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে। ডার্ক চকোলেটে ৭০% কোকো পাউডার থাকে তাই চিনির পরিমাণ কম থাকে। চিনি ত্বকের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই ত্বকের জন্য ডার্ক চকলেট খুবই উপকারী।

৭। মাছ

ত্বকের বলিরেখা দূর করতে মাছ খাওয়া খুবই জরুরী। মাছে প্রচুর পরিমাণে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি এসিড থাকে। ফলে মাছ খেলে আমাদের ত্বকের বলিরেখা দূর হয়।

৮। হলুদ

ত্বকে ব্যবহারের ক্ষেত্রে সবসময় খাটি হলুদ ব্যবহার করা উচিত। সিনথেটিক রংযুক্ত হলুদ কখনোই গ্রহণ করা উচিত নয়। তাহলে ত্বকে ক্ষতি হয় ও ত্বকে দাগ পড়ে। হলুদে অ্যান্টি- অক্সিডেন্ট থাকে প্রচুর পরিমাণে তাই হলুদ ত্বকের ক্ষতি হওয়া থেকে বাচায়। ত্বকের লালচে ভাব কমায় ও ব্রণ দূর করে। হলুদ ত্বক সতেজ রাখে। ত্বক উজ্জ্বল রাখে। বয়সের ছাপ কমায় ও হারানো লাবণ্য ফিরাতে সাহায্য করে।

৯। ডিম

ডিম খেতে খুব বেশি সুস্বাদু। ডিমের অনেক উপকারীতা রয়েছে। ডিম খেলে ওজন কমে ও ত্বক সুস্থ থাকে। ডিমে রয়েছে সালফার যা কোলাজেন উতপাদন করে। ত্বকের দীপ্তি বাড়ায় ও ত্বক উজ্জ্বল রাখে। ডিম খেলে ত্বক টানটান থাকে। ডিমের কুসুমে প্রচুর ভিটামিন ই রয়েছে যা ত্বক উজ্জ্বল রাখে ও মসৃণ রাখে।

১০। পালং শাক

পালং শাকে ভিটামিন এ, সি ও কে থাকে। এগুলো ত্বক উজ্জ্বল রাখে ও ত্বকের দাগ ছোপ দূর করে। ত্বকের কালচে ভাব দূর করে। এতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ত্বকের বয়সের ছাপ দূর করে। এটি প্রাকৃতিক সান ব্লক হিসাবে কাজ করে। পালং শাকে প্রচুর অক্সালিক অ্যাসিড থাকে যা শরীরকে পুষ্টি শোষণ করতে সাহায্য করে।

আরো পড়ুনঃ

ঘরোয়াভাবে নখের যত্ন

যেসব তেল চুলের জন্য খুব উপকারী

টিনএজারদের ত্বকের যত্ন

ঘরোয়া উপায়ে ব্ল্যাক হেডস দূর করার উপায়

বর্ষায় চুলের যত্ন

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.