খাদ্য ও স্বাস্থ্যকথাখাদ্য টিপস

মস্তিষ্কের জন্য সেরা খাবার

মস্তিষ্কের উপকারী খাবার

মস্তিষ্কের উপকারী খাবার

পুষ্টিবিদদের মতে বিভিন্ন মুখরোচক খাবার যেমন চকলেট মা মিষ্টি জাতিয় খাবার সু্স্বাদু হলেও তা মস্তিষ্কের জন্য সেরা খাবার বা উপকারী নয়। মস্তিষ্ককে কার্যকর, সতেজ, চাঙ্গা ও স্থির রাখতে প্রয়োজন কার্বোহাইড্রেট ভিটামিন এ, সি এবং ই-এর জাতিয় খাবার মস্তিষ্কের জন্যে সেরা খাবার৷

মানুষ যখন মানসিক ও কাজের চাপে থাকে তখন তার শরীর হতে এক প্রকার হরমোন নিঃসৃত হয়। এতে তার মিষ্টি জাতীয় খাবার খেতে আগ্রহ জাগে। আর এই সময় মিষ্টি জাতীয় খাবার যেমন চকলেট, মিষ্টি ইত্যাদি খেলে রক্তে সুগারের পরিমাণ বেরে যায় এবং শরীর এক্টিভ হয়ে ওঠে। 

চকলেট বা মিষ্টি জাতীয় খাবার মস্তিষ্কের জন্যে ভালো নয়

পুষ্টিবিজ্ঞানী ইনগ্রিড কিফার বলছেন, মিষ্টি বা চকলেট রক্তে সুগারের পরিমাণকে খুব দ্রুত বাড়িয়ে দেয়, ফলে মস্তিষ্কে এক ধরণের সুখবোধ তৈরি হয়৷ তবে মস্তিষ্কের এই চাঞ্চল্য বোধ বা সুখবোধের অনুভুতি খুব দ্রুত বিলীন হয়ে যায়৷ অর্থাৎ চকলেট বা মিষ্টি জাতীয় খাবার হতে পাওয়া চাঞ্চল্য বোধ বা সুখবোধ খুবই ক্ষণস্থায়ী৷ সেজন্যে মস্তিষ্কের দীর্ঘস্থায়ী কর্মচাঞ্চল্যের জন্য আমাদেরকে কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার গ্রহণের প্রতি পরামর্শ দিয়েছেন পুষ্টিবিজ্ঞানী কিফার৷

পুষ্টিবিজ্ঞানীরা বলেন যে, চকোলেট বা গ্লুকোজের বা মিষ্টি জাতীয় খাবার রক্তে খুব দ্রুত মিশে যায়৷ এদিকে কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবারগুলো আমাদের পরিপাকতন্ত্রে সময় নিয়ে হজম হওয়ার প্রক্রিয়াটা সম্পাদন করে৷ ফলসরুপ রক্তে সুগারের পরিমাণ ধরে রাখে দীর্ঘ সময়।  এবং কাজে মনোনিবেশ ধরে রাখা যায় দীর্ঘ সময়৷

কার্বোহাইড্রেট জাতীয় খাবার মস্তিষ্কের জন্যে অনেক উপকারী

মস্তিষ্ককে প্রচুর পরিমাণ কমপ্লেক্স কার্বোহাইড্রেট যোগান দেয় এমন খাবারের মধ্যে মটরশুঁটি, ফল, শস্যকণা, যব, জই, আলু, গম, শিম এবং সবজি জাতীয় খাবারগুলো অন্যতম।

এছাড়া বিভিন্ন সামুদ্রিক মাছ যেমন – হেরিং, ম্যাকারেল, টুনা ও স্যামন মাছও মস্তিষ্কের খাবার সরবরাহকারী হিসেবে বেশ উপকারী৷

মস্তিষ্কের খাবার যোগানকারী হিসেবে বাদাম, চীনা বাদাম, চীনা বাদামের তেলও অন্যতম।

এই সকল খাবারে এমন এক ধরণের অ্যাসিড উপাদান আছে যা আমাদের স্টোক জাতীয় নানা রোগ হতে বাচায়। 

পুষ্টিবিজ্ঞানীরা গবেষণা করে বলেছেন যে মস্তিষ্কের জন্য ভিটামিন এ, সি এবং ই এর গুরুত্ব অপরিসীম। আমাদের  মস্তিষ্কের বিভিন্ন কোষ-এর ক্ষয় হতে রক্ষা করা এবং স্নায়ু ও রক্তপ্রবাহী নালির সুরক্ষার জন্য এই ভিটামিনগুলো ভীষণ উপকারী। 

পুষ্টিবিজ্ঞানীদের মতে মানুষের খুব দ্রুত বিচলিত হয়ে যাওয়া, রাগান্বিত হওয়া, উত্তেজিত, মেজাজ খিটখিটে এবং ক্লান্ত ও অবসাদগ্রস্ত হয়ে যাওয়ার অন্যতম কারণ হলো শরীরে ভিটামিন এ, সি এবং ই- এর ঘাটতি। তাই পুষ্টিবিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়েছেন সে সব খাদ্য খেতে যে সব খাদ্যে ভিটামিন এ, সি এবং ই আছে।

আবার ভিটামিন ‘বি‘ এর গুরুত্বও কম নয়৷ এটা মস্তিষ্কের দূর্বল কোষগুলোকে সুরক্ষা দেয় এবং নতুন নতুন কোষ গজাতে সাহায্য করে। গম, শিম, কলিজা এবং কলা‘র মধ্যে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন বি  আছে।

এবার  সিদ্ধান্ত নেবার পালা আপনার৷ আপনি আপনার মস্তিষ্ককে সুস্থ ও কার্যকর রাখতে কি খাবেন। 

আরো পড়ুনঃ

কোন খাবারে প্রোটিন বেশি

সুস্থভাবে বেঁচে থাকার জন্য যে কাজগুলো করা দরকার

সকালের নাস্তায় রুটি খাওয়া কতটা স্বাস্থসম্মত?

Related Articles

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.