করোনা ভাইরাস

শিশুদের করোনা থেকে মুক্ত রাখতে কি করবেন

শিশুদের করোনা থেকে বাচার উপায়

গত বছর বৃদ্ধরা খুব বেশি করে করোনাতে আক্রান্ত হয়েছিল। শিশুদের মধ্যে করোনাতে আক্রান্ত হওয়ার সংখ্যা খুব কম ছিল। কিন্তু এছরে করোনা শিশু বৃদ্ধ কারোই যেন ছাড়ছে না। শিশুরাও খুব সহজেই করোনাতে আক্রান্ত হয়ে পড়ছে। আবার তারা করোনার বাহক ও হয়ে পড়ছে।

আরো পড়ুনঃ শরীরের জন্য ভিটামিন ডি

চিকিৎসকেরা তাদের মতামত দিয়েছেন, করোনায় আক্রান্ত হলে শিশুদের মধ্যে নানা ধরনের উপসর্গ দেখা দেয়। যেমনঃ- তাদের শরীরে ফুসকুড়ি, তলপেটে ও পেটে ব্যাথা, জ্বর, শুকনা কাশি, হাচি, শ্বাস প্রশ্বাসের সমস্যা বৃদ্ধি। শিশুদের মধ্যে এ ধরনের উপসর্গ দেখা দিলে তাদেরকে তাড়াতাড়ি চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যেতে হবে। শিশুদের করোনা আক্রান্ত হওয়ার আগে থেকেই তাদেরকে মাস্ক পড়াতে হবে। সামাজিক দূরত্ব মেনে চলতে হবে। তাদের নিয়ে বাইরে গেলে স্যানিটাইজ করে দিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ
করোনাকালীন সময়ে বাইরে যাওয়ার সময় যা যা মাথায় রাখতে হবে


করোনা এড়াতে শিশুদের যেসব বিষয় জরুরি-

দূরত্ব বজায় রাখাঃ
– শিশুদের সবসময় সামাজিক দূরত্ব মেনে চলা শেখাতে হবে। খুব বেশি প্রয়োজন না পড়লে শিশুদেরকে নিয়ে বাইরে যাওয়া যাবে না। তাদের দরকারে বাইরে নিয়ে গেলেও কারো বেশি কাছে নিয়ে যাওয়া যাবে না। শিশুদেরকে বাইরে খেলতে নিয়ে যাওয়া যাবে না। এসময় তাদেরকে নিয়ে বাসাতেই নিজেরা মিলে খেলতে হবে। শিশুদের মন ভালো রাখতে তাদেরকে বন্ধুদের সাথে মোবাইলে কথা বলিয়ে দেওয়া যেতে পারে।


আরো পড়ুনঃ করোনা হওয়ার পর শরীর দূর্বল হলে কি করবেন


ঘরে সুরক্ষা মেনে চলা উচিতঃ-
ঘর সবসময় জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার করা উচিত। টেবিল, চেয়ার, দরজা স্যানিটাইজ করুন। ঘরের বাইরে জুতা খুলে রাখুন। ডাস্টবিন ঢাকনা দিয়ে সবসময় ব্যবহার করুন। ফল, সবজি ভালো করে ধুয়ে পরিষ্কার করুন।

স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাঃ- শিশুদেরকে হাতে, মুখে, নাকে হাত দেওয়াতে নিরুৎসাহিত করুন। তাদেরকে স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে উদ্বুদ্ধ করুন। তাদেরকে কিছু সময় পর পর হাত ধুইয়ে দিন। হাচি ও কাশির সময় মুখ ঢাকতে বলুন। বৃদ্ধদের কারো প্রাথমিক লক্ষণ দেখা দিলেই তাদেরকে আলাদা রাখুন।

আরো পড়ুনঃ করোনার ভ্যাকসিন নেওয়ার পর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া





Related Articles

Back to top button