গৃহসজ্জালাইফস্টাইল

শীতে লেপ, কম্বল বের করে কিভাবে বাড়িতেই পরিষ্কার করতে হবে?

ঘরে লেপ, কম্বল পরিষ্কার করার নিয়ম

শীত বছরে একবারই আসে। তাই লেপ, কম্বল ব্যবহারের পরে সবাই উঠিয়ে রাখে আবার শীত আসার আগে বের করে। তাই শীত শুরুর আগে লেপ, কম্বল ভালোভাবে ধুয়ে পরিষ্কার করে নিতে হবে। লেপ, কম্বল ব্যবহারের আগে কিছু নিয়ম মেনে চললে এগুলো বছরের পর বছর ভালো থাকে। এসব জিনিস ঘরেই কিভাবে ক্লিন করা যায় তার বর্ণনা দেওয়া হলো-

১। পরিষ্কার করতে হবে-

অনেকদিন যাবত ব্যবহার না করার ফলে লেপ, কম্বল ময়লা হয়ে যায়। তাই বের করেই ময়লা পরিষ্কার করে নিতে হবে। হাত দিয়ে বা ঝাড়ু দিয়ে পরিষ্কার করে পিটিয়ে ময়লা ঝেড়ে নিতে হবে। কয়েকজন লেপ বা কম্বল উচু করে নিয়ে ভালো করে পিটিয়ে পরিষ্কার করে ময়লা সরিয়ে নিতে হবে।

আবার মাটিতে মাদুর বিছিয়ে ঝেড়ে নিতে পারেন। অথবা ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ও ব্যবহার করা যেতে পারে। তখন ভ্যাকুয়ামের মুখে একটা নাইলনের পাতলা জাল পেচিয়ে নিতে হবে। তারপর লেপ, কম্বলের উপরে হালকা করে ঘসে পরিষ্কার করে নিতে হবে।

আবার পুরনো ব্রাশ দিয়েও পরিষ্কার করা যেতে পারে। পুরনো ব্রাশ অনেক নরম থাকে। শক্ত কোন জায়গায় বিছিয়ে নিয়ে কম্বলে ব্রাশ করতে হবে। তাহলে কম্বলে থাকা ময়লা বের হয়ে যাবে।

২.গন্ধ দূর করতে হবে-

লেপ, কম্বল বের করার পরেই একটা বাজে ধরনের গন্ধ বের হয়ে আসবে। ময়লা পরিষ্কার করে গন্ধ দূর করতে হবে। গন্ধ দূর করতে হলে কড়া রোদে দিতে হবে। শুকনো, রোদ পায় ও বাতাস চলাচল করে এমন জায়গায় লেপ, কম্বল বিছিয়ে রাখতে হবে। তারপর ড্রায়ার দিয়েও গন্ধ দূর করা সম্ভব। হিট ছাড়া এয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করে লেপ, কম্বল থেকে গন্ধ দূর করা যায়।

৩. ভালো জায়গায় রাখতে হবে-

লেপ, কম্বল কখনোই ময়লা জায়গায় রাখা যাবে না। এমন জায়গায় রাখা যাবে না যেখানে খুব বেশি ধুলাবালি উড়ে। পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন, সমতল জায়গায় লেপ, কম্বল রাখতে হবে। কোথাও বিছিয়ে সংরক্ষণ করলে বেশি ভালো হয়। কভার লাগিয়ে নিতে পারেন। লেপ, কম্বল পরিষ্কার করার পর কাপড় শুকানোর দড়িতে দেওয়া যাবে না। তাহলে রং লেগে যেতে পারে।

লেপ, কম্বল পরিষ্কার করার নিয়ম

৪. দাগ তুলে ফেলতে হবে-

ঘরে বসেই লেপ, কম্বলের দাগ তুলে ফেলা যায়। তবে তুলার লেপের দাগ তুলতে হলে ড্রাই ক্লিন করলে ভিতরের তুলার ক্ষতি হতে পারে। তাই দাগ তুলার আগে ওই জায়গার তুলা সরিয়ে নেওয়া ভালো।

দাগ তুলতে হলে স্বাভাবিক পানির সাথে ডিটারজেন্ট, বেবি শ্যাম্পু, অক্সিজেন ব্লিচ মিশিয়ে নিতে হবে। তবে লেপ, কম্বল উলের বা সিল্কের হলে ব্লিচ ব্যবহার করা যাবে না। স্টেইন রিমুভার দিয়ে খুব সহজেই শীতের পোশাক স্পট ক্লিন করা যায়।

ঘরে ক্লিন করতে এসব মিশ্রণ ভালো মতো মিশিয়ে কিছু সময় ডুবিয়ে রাখতে হবে। তারপর তুলে পরিষ্কার করতে হবে। সুতি শুকনো কাপড় দিয়ে দাগ ঘসে তুলে নিতে হবে।

৫.নিয়ম মেনে ধুতে হবে-

কম্বল, লেপ ধোয়ার সময় ভুল পদ্ধতি অনুসরণ করলে মেশিনে বা হাতে ধুতে গেলে লেপ বা কম্বল ছিড়ে যেতে পারে।

মেশিনে কম্বল ধোয়ার নিয়মঃ

১। মেশিনে কম্বল ধুতে হলে অবশ্যই ঠান্ডা পানি, রং ও গন্ধহীন হালকা ডিটারজেন্ট ব্যবহার করতে হবে।

২। মেশিনে পানি ভরে নিয়ে তারপর ডিটারজেন্ট মিশাতে হবে। তার ভিতরে কম্বল ধুতে হবে।

৩। মেশিন জেন্টেল সাইকেলে সেট করে নিতে হবে।

৪। রং উঠার ভয় থাকলে কালার ক্যাচার ব্যবহার করা যেতে পারে।

৫। মেশিনে ২-৩ মিনিটের বেশি কম্বল ধোয়া যাবে না।

হাতে কম্বল ধোয়ার নিয়মঃ

১। হাতে কম্বল ধুতে হলে ডিটারজেন্ট ও ঠান্ডা পানি ব্যবহার করতে হবে।

২। বড় গামলা বা বাথটাবে পানি ও ডিটারজেন্ট মিশিয়ে নিতে হবে।

৩। তার ভিতরে কম্বল ডুবিয়ে ১০-১৫ মিনিট কাচতে হবে। মোচড়ানো যাবে না। পানিতে সম্পূর্ণ কম্বল ঢুবিয়ে দিতে হবে।

৪। ১৫ মিনিট পরে পানি ফেলে দিয়ে পরিষ্কার পানি দিয়ে আধা কাপ হোয়াইট ভিনেগারে মিশিয়ে নিতে হবে। তারপরে আবার তাতে কম্বল ডুবিয়ে দিতে হবে। ভিনেগার কম্বল থেকে বাড়তি ডিটারজেন্ট ধুয়ে ফেলে দেবে। তাহলে কম্বলের রং ঠিক থাকে।

৫। যতক্ষণ না পর্যন্ত ডিটারজেন্ট পরিষ্কার না হয় তত পর্যন্ত ভিনেগার দিয়ে ধুতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

ছাদ বাগান পরিচর্যা

যেকোন ব্যথা সারাতে যেসব খাবার খেতে পারেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button
error: Content is protected !!

Adblock Detected

Please turn off your Adblocker.